Dhaka University Admission Test information and Circular 2020-21 Ka Unit

Dhaka University Admission Test 2020-21

ক ইউনিটের সকল তথ্য

শিক্ষার্থীবন্দুরা, তোমরা যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা দিবা তোমাদের জন্য এই ব্লগটি। এখানে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি সার্কুলার দেওয়া আছে। ভর্তি পরিক্ষার যাবতীয় সকল ইনফরমেশন এখানে পাবেন।

ক ইউনিটি হচ্ছে বিজ্ঞান বিভাগের জন্য। এখানে বিজ্ঞান বিভাগ ছাড়া অন্য কেউ পরীক্ষা দিতে পারবেন না।

ক-ইউনিট :

বিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, ফার্মেসী, আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস ও ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজী অনুষদ এবং সংশ্লিষ্ট ইনস্টিটিউটে বিজ্ঞান ও কৃষিবিজ্ঞান শাখার ছাত্র/ছাত্রী আবেদন করতে পারবে।

এই ইউনিটের আওতায় যে সকল বিভাগ/ইনস্টিটিউট-এ ভর্তির জন্য আবেদন করা যাবে তা ওয়েবসাইটে প্রদত্ত ইউনিটের ভর্তি নির্দেশিকায় বিস্তারিত উল্লেখ থাকবে।

বিজ্ঞান ও কৃষিবিজ্ঞান শাখায় উচ্চ মাধ্যমিক এবং মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের বিজ্ঞান শাখায় আলিম ও IGCSE/O Level এবং IAL/GCE A Level পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) প্রাপ্ত জিপিএ-দ্বয়ের যোগফল ন্যূনতম ৮.৫ (মাধ্যমিক/সমমান এবং উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষায় আলাদাভাবে ন্যূনতম জিপিএ- ৩.৫ থাকতে হবে) আছে তারা ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে। বিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, ফার্মেসী, আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস ও ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজী অনুষদে অন্তর্ভুক্ত বিভাগ/বিষয়সমূহ এবং সংশ্লিষ্ট ইনস্টিটিউটে মেধা অনুযায়ী ভর্তির জন্য নির্বাচিত প্রার্থীদের ভর্তিচ্ছু বিষয়ে অথবা ঐ বিষয়ের সঙ্গে সম্বন্ধযুক্ত অনুমোদিত বিষয়ে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় সর্বনিম্ন গ্রেড/গ্রেড পয়েন্ট প্রাপ্তির শর্তাদি ওয়েবসাইটে প্রদত্ত ভর্তি-নির্দেশিকায় বিস্তারিত উল্লেখ থাকবে।

Dhaka University Admission Notice 2020-21 www.du.ac.bd. Dhaka University Admission Test for the academic session 2020-2021 of Graduation (Honours) 1st year will be seized this year on next 21st May (Friday) 2021. Interested candidates will have to apply in Dhaka University Admission Test Notice 2020-21 by online.
 

This year interested candidates will not get the opportunity to participate in Dhaka University Admission Test Notice 2020-21 for the 2nd time. Dhaka University Admission Test circular 2020-21 online application time will be initiating on next August 2020. Online application time of Dhaka University Admission Test Notice 2020 www.du.ac.bd will be concluding on next March (Tuesday) 2021.

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক ইউনিট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটের অধীন বিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, ফার্মেসী, আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস, ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনােলজি অনুষদ এবং পরিসংখ্যান গবেষণা ও শিক্ষণ ইনস্টিটিউট, পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট, তথ্য প্রযুক্তি ইনস্টিটিউট, ইনস্টিটিউট অব লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনােলজি এবং শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট। স্নাতক (সম্মান) প্রােগ্রামে ফার্মেসী অনুষদে ৫ (পাঁচ) বছর মেয়াদী এবং অন্যান্য অনুষদ ও ইনস্টিটিউট-এ ৪ (চার) বছর মেয়াদী।

গুরুত্বপূর্ণ তথ্যসমূহ (ক ইউনিট)

 

ভর্তি পরীক্ষার তারিখঃ ২১ মে ২০২১ (শুক্রবার)
ভর্তি পরীক্ষার সময়ঃ সকাল ১১ঃ০০ – ১২ঃ৩০ পর্যন্ত
প্রযোজ্য বিভাগ: বিজ্ঞান বিভাগ
মোট অনুষদ: ১০টি
মোট বিভাগ: ৩২টি
আসন সংখ্যা: ১,৭৯৫ টি
আবেদন ফি: ৪৫০/- টাকা
আবেদনের লিংক:  admission.eis.du.ac.bd

 

আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা

প্রার্থীকে অবশ্যই ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মাধ্যমিক বা সমমান এবং ২০২০ সালে বিজ্ঞান/কৃষিবিজ্ঞান শাখায় উচ্চ মাধ্যমিক অথবা মাদ্রাসা বাের্ডের বিজ্ঞান শাখায় পাশ করতে হবে।  মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক (বা সমমানের) পরীক্ষার প্রতিটিতে পৃথকভাবে ৪র্থ বিষয়সহ ন্যূনতম ৩.৫ জিপিএসহ প্রাপ্ত জিপিএ-দ্বয়ের যােগফল ন্যূনতম ৮.৫ হতে হবে।

ক ইউনিট ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টন

২০২০-২১ ‍শিক্ষাবর্ষের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ক ইউনিট ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টনে পরিবর্তন আনার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে ।  পরীক্ষা MCQ এবং লিখিত উভয় পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তি পরীক্ষার মোট নম্বর হবে ১০০ তন্মাধ্যে ৬০ নম্বরের MCQ এবং ৪০ নম্বরের লিখিত অংশ থাকবে। MCQ পরীক্ষা ৪৫ মিনিট এবং লিখিত পরীক্ষা ৪৫ মিনিটের হবে।

 বহুনির্বাচনী (MCQ) পরীক্ষার মান বন্টন

MCQ পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর কাটা হবে এবং তা বিষয়ভিত্তিক সমন্বয় করা হবে। একজন প্রার্থী যে ৪টি বিষয়ের প্রশ্নের উত্তর দিলে তার উপর নির্ভর করবে সে কোন বিভাগ/ইনস্টিটিউট এ ভর্তি হতে পারবে।

 বিষয়ের নাম

 এমসিকিউ

 লিখিত

পদার্থ বিজ্ঞান (আবশ্যিক)

১৫

১০ 

 রসায়ন (আবশ্যিক)

 ১৫

১০ 

 গনিত

১৫ 

১০ 

 জীব বিজ্ঞান

 ১৫

১০

 বাংলা

 ১৫

১০

 ইংরেজী

 ১৫

১০

 মোট

 ১০০

  • যে সকল প্রার্থী উচ্চ মাধ্যমিক অথবা সমমানের পর্যায়ে পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন, গণিত ও জীববিজ্ঞান বিষয়ে অধ্যয়ন করেছে তারা এ সকল বিষয়ে পরীক্ষা দিবে। তবে কোনাে পরীক্ষার্থী ইচ্ছা করলে শুধুমাত্র উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের ৪র্থ বিষয়ের পরিবর্তে বাংলা অথবা ইংরেজি যেকোনাে একটি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে পারবে। এখানে উল্লেখ্য যে, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন বিষয়ে পরীক্ষা দেয়া আবশ্যিক।
  • A-Level পর্যায়ে অধ্যয়নকৃত পরীক্ষার্থী পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়নসহ অন্য (গণিত/জীববিজ্ঞান/বাংলা/ইংরেজি বিষয়ের মধ্যে) যেকোনাে দুইটি বিষয়ে পরীক্ষা দিয়ে মােট চারটি বিষয় পূর্ণ করবে।

লিখিত পরীক্ষার মান বন্টন

লিখিত অংশে মোট নম্বর ৪০ এবং সময় ৪৫ মিনিট। প্রতিটি বিষয়ে মোট নম্বর ১০। প্রতিটি প্রশ্নের মান ২ থেকে ৫ এর মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে।

 

ঢাবি ক ইউনিট ভর্তি পরীক্ষার পাশ নম্বর

ভর্তি পরীক্ষার MCQ অংশের পাস নম্বর ২৪। উল্লেখ্য, MCQ পরীক্ষায় ২৪ নম্বরে পেলে কেবল লিখিত পরীক্ষার উত্তরপত্রের মূল্যায়নের জন্য বিবেচিত হবে। তবে MCQ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মধ্যে থেকে ‘ক’ ইউনিট এর মোট আসনের কমপক্ষে ৫ গুন লিখিত পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়ন করা হবে। লিখিত অংশের পরীক্ষায় পাস নম্বর ১২। তবে ১০০ নম্বরের মধ্যে MCQ এবং লিখিত পরীক্ষার মোট পাস নম্বর ৪০। যারা ৪০ এর কম নম্বর পাবে তাদের কে ভর্তির জন্য বিবেচনা করা হবে।

 

মেধাস্কোর ও মেধাক্রম

মােট ১২০ নম্বরের ভিত্তিতে প্রার্থীদের অর্জিত মেধাস্কোরের ক্রমানুসারে মেধা তালিকা তৈরি করা হবে। এজন্য মাধ্যমিক/o-Level বা সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত/হিসাবকৃত জিপিএকে ২ দিয়ে গুণ; উচ্চ মাধ্যমিক/A-Level বা সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত/হিসাবকৃত জিপিএকে ২ দিয়ে গুণ করে এই দুইয়ের যােগফল ভর্তি পরীক্ষায় ১০০-তে প্রাপ্ত নম্বরের সাথে যোগ দিয়ে ১২০ নম্বরের মধ্যে মেধাস্কোর নির্ণয় করে ক্রমানুসারে মেধা তালিকা তৈরা করা হবে।

মেধাস্কোর সমান হলে নিম্নলিখিত ক্রমানুসারে মেধাক্রম তৈরি করা হবে :

  • ভর্তি পরীক্ষায় প্রাপ্ত স্কোর
  •  HSC/সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত GPA without 4th subject
  • HSC/সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত GPA with 4″ Subject
  • SSC/সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত GPA without 4″ Subject
  • SSC/ সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত GPA with 4″ Subject
  • HSC/সমমানের পরীক্ষায় চারটি বিজ্ঞান বিষয়ে প্রাপ্ত GPA এর যােগফল।

মেধাস্কোরের ভিত্তিতে নির্ণীত মেধাক্রম অনুযায়ী উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মেধা তালিকা ও ফলাফল ভর্তি পরীক্ষার পর ৪ (চার) সপ্তাহের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির ওয়েব সাইটেও  admission.eis.du.ac.bd পাওয়া যাবে। এছাড়া এসএমএস এর মাধ্যমে ফলাফল জানতে পারবে।

 

ঢাবি ক ইউনিট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

২০২০-২০২১ সালের ঢাবি ক ইউনিট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। নিচে তা দেওয়া হলো দেখে নিন-

 

ঢাবি ক ইউনিট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

About of the Dhaka University

On the first day of July 1921 the University of Dhaka opened its doors to students with Sir P.J. Hartog as the first Vice-Chancellor of the University. The University was set up in a picturesque part of the city known as Ramna on 600 acres of land.

The University started its activities with 3 Faculties,12 Departments, 60 teachers, 877 students and 3 dormitories (Halls of Residence) for the students. At present the University consists of 13 Faculties, 83 Departments, 12 Institutes, 20 residential halls, 3 hostels and more than 56 Research Centres. The number of students and teachers has risen to about 37018 and 1992 respectively.

The main purpose of the University was to create new areas of knowledge and disseminate this knowledge to the society through its students. Since its inception the University has a distinct character of having distinguished scholars as faculties who have enriched the global pool of knowledge by making notable contributions in the fields of teaching and research.

The high standard of education and research for the University was set by its first Vice-Chancellor, Sir P.J. Hartog when in the 2nd Convocation address he said, “A man may be an excellent teacher of elementary subjects without the power to add to knowledge. But in advanced work I maintain that no one can really teach well unless he has the combination of imagination with critical power which leads to the original production (of knowledge), and for that if for no other reason, a university to be a true university must see that its teachers are men who are also capable of advancing knowledge.”

At the beginning a distinctive feature of the University of Dhaka was its non affiliating, residential character like that of the Oxford of England. However, since 1947 the University was given an affiliating mandate in place of an exclusive residential-cum-teaching character.

A new phase began in the history of the University with the emergence of the People’s Republic of Bangladesh in 1971. This has been a phase of development, expansion and consolidation of earlier gains. The University has assumed a central role in the academic pursuits of the region including this new nation. The University of Dhaka has passed through tumultuous times at different periods of our national history and played vital, at times pioneering, roles in all critical junctures in the making of this great nation. The founder of Bangladesh Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman along with the teachers and students of this University played the central role in the Language Movement of 1948 and 1952 that ultimately culminated in the recognition of Bangla as the State Language. He along with 27 students actively participated in the movement of fourth-class employees of this university and was penalized for several times. He was also expelled and lost his studentship from the department of Law. Later on, this university under the active guidance of Bangabandhu launched the student movement, 6-point movement and 11-point movement and thus leading the country towards independence. Henceforth several important incidences took place: the flag of Bangladesh was hoisted on 2nd March 1971, next day the manifesto of independence was declared and Bangabandhu became the head of the state, open arms training started and Joy Bangla Bahini was formed after the historic 7th March speech, which ultimately set the nation for a formal freedom fighting. During the liberation war Mujibnagar Government was formed with Bangabandhu as the President, Sayed Nazrul Islam as the Vice President and Tajuddin Ahmed as the Prime Minister. These leaders and many, who participated in the liberation war, were the students of this university. During the liberation war 194 persons including teachers, students, officers, staffs and their relatives sacrificed their lives at the altar of the state and this way Dhaka University made an extraordinary and considerable contribution in the creation of independent Bangladesh. Just after the creation of Bangladesh, the government proclaimed the University of Dhaka Order 1973 whereby democratic norms and autonomy became integral features of the institution.

While serving as the highest echelon of academic excellence, the University also functions as a central premise for free thought and democratic practices that would lead the nation to its march towards progress. The University of Dhaka is increasingly striving to combine the pursuit of knowledge and truth with the values and needs of an evolving society. It is noteworthy that the Governor of Bengal and the Chancellor of the University of Dacca, Loard Lytton in his speech at the first Convocation of the University on 22 February, 1923 said “….this University is Dacca’s greatest possession, and will do more than anything else to increase and spread the fame of Dacca beyond the limits of Bengal or even of India itself”.

Presently the University enrolls more than 5,800 students, on merit basis, in the first year Honours Program in different Departments of the Faculties and the Institutes. Besides conducting teaching courses in the 4- year Bachelor and 1-year Masters Programmes, the University also trains up a large number of researchers in different disciplines. More than 1262 Ph.D. and 1217 M.Phil. researchers have obtained their degrees from this University.

The University of Dhaka is dedicated to the advancement of learning, and is committed to promoting research in all fields of knowledge. As there are plans for further expansion of facilities, plans for new avenues and opportunities, the course curricula are updated and new research projects are undertaken every year. As the pioneer and the largest seat of learning in the country, the University of Dhaka has taken the task to foster the transformation processes of the individual students and the country as a whole through its educational and research facilities keeping up with demands of the day. The University of Dhaka is at this moment one of the leading institutions of higher education in Asia.

The University of Dhaka is well prepared to meet the challenges of the future days with its spirit of freedom, justice and truth as a foundation concomitant to the objectives envisaged by the founding fathers.

The open-minded character of the University of Dhaka embodying the features of beauty and historical origins can be seen as one

Leave a Reply

Your email address will not be published.